একদা এক অতীব ধুরন্ধর ব্যাবসায়ী আবিস্কার করিলেন তার পাশের বাড়িতে আগুন জ্বলিতেছে। তিনি যেহেতু অতীব চালাক, সব কিছুতেই নিজের সুবিধা আদায় করিয়া লইতে সিদ্ধহস্ত। তিনি ভাবিলেন পাশের বাড়ির আগুনে আলু পুড়াইবেন। আলু পুড়াইয়া পরে বেশি দামে বিক্রি করিবেন।

কিন্তু সমস্যা বাধিল যখন তিনি আবিস্কার করিলেন আগুনে পুড়াইবার জন্য তাহার কাছে কোনো লৌহ দন্ড নাই যাহা তিনি আলুতে ঢুকাইয়া আগুনে পুড়াইবেন। তাহার একমাত্র সম্বল তাহার পাটখড়ি খানি।

তিনি কিছুক্ষন ভাবিলেন, অনেক ভাবিয়া চিন্তিয়া বাহির করিলেন, আগুনের যে তাপ তাহাতে আলুতে পাটখড়ি ঢুকাইয়া কিছু করিতে গেলে একমাত্র পাটখড়িখানা আগুনে পুড়িয়া ছাড়খাড় হইয়া যাইতে পারে।

আগুন যেহেতু ধরিয়াছে সেহেতু কিছু লাভ তো তাকে করিতেই হইবে, কিন্তু তাই বলিয়া নিজের পাটখড়িখানা আগুনে ছাই বানানো যাইবে না।

তাই তিনি সেই পাশের বাড়ির আগুনে গিয়া কিছুক্ষন উত্তাপ পুহাইলেন। অতঃপর খুশি মনে নিজের বাড়িতে ফেরত আসিলেন।

মনে মনে তৃপ্তির ঢেকুঢ় তুলিয়া কহিলেন, যাহাই হোক কিছু তো পাইলাম!

Tags: